পানামা খাল |4060

Spread the love

পানামা খাল |4060

পানামা খালকে প্রশান্ত মহাসাগরের প্রবেশদ্বার বলা হয়ে থাকে। এটি আটালান্টিক মহাসাগন ও প্রশান্ত মাহাসাগরকে সংযুক্ত করেছে।  পানামা খাল খনন হয় ১৯০৪ সালে ও শেষ হয় ১৯১৪ সালে কিন্তু এর ইতিহাস আরও সমৃদ্ধ। স্প্যানিশ অভিযাত্রী ভাস্কো নুয়েঞ্জ ডি বালবোয়াই প্রথম ইউরোপীয়, যিনি আটলান্টিক ও প্রশান্ত মহাসাগরের এ সম্মিলনের কথা বলেছিলেন। সে সময়ের স্প্যানিশ রাজা বালবোয়াইয়ের এ ধারণাকে উড়িয়ে দেন। তবে ১৫৩৪ সালে অপর রাজা চার্লস পঞ্চম প্রস্তাবটি যাচাইয়ে একটি কমিটি গঠন করেন। কমিটি তদন্ত করে জানায় একটি জাহাজ প্রবেশ করতে পারে এমন খাল ওই স্থানে খনন করা অসম্ভব। এরপর সময় কেটে যায় শতাব্দির পর শতাব্দি। পানামা খাল আর খনন করা যায়নি। আঠারো শতকের শেষের দিকে এ পথটিতে ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্রের চোখ পড়ে। মূলত যুক্তরাষ্ট্রের কঠিন হস্তক্ষেপেই তৈরি হয়েছে পানামা। পূথিবীর গভীরতম খাল হল পানামা খাল, এটি উত্তর আমেরিকা ও দক্ষিন আমেরিকাকে পৃথক করেছে।

পানামা খাল

পানামা খাল খননের শুরুর দিকে বেশ কয়েকটি পরীক্ষা ব্যর্থ হয়। ভারি বর্ষণ, আর্দ্রতা ও স্থানীয় বিভিন্ন রোগ ছিল খাল খননের অন্যতম প্রতিবন্ধক। এর আগেও স্পেন খাল খনন শুরু করলে নানা কারণে বিশ হাজার শ্রমিক দুর্ঘটনা ও মশার কামড়ে হলুদ জ্বর হয়ে মারা গেলে খনন বন্ধ রাখা হয়। যুক্তরাষ্ট্র তার কারিগরি সক্ষমতা দিয়ে শ্রমিক মৃত্যুর সংখ্যা কমিয়ে আনে। তারপরও প্রায় পাঁচ হাজার ছয়শ শ্রমিক মারা যায়।। ৮০ মিটার লম্বা প্রশান্ত ও আটলান্টিক মহাসাগরের মধ্যে সংযোগকারী এই কৃত্রিম জলপথটি বাস্তবেই যেন এক বিস্ময়।পানামা খালের  প্রস্থ ১৪ মিটার । এই  খাল দিয়ে যেতে ১১.৩৮ ঘণ্টা সময় লাগে।

আরও পড়ুনঃ- ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধের তথ্য

পানামা খাল |4060 পানামা খাল |4060 পানামা খাল |4060

পানামা খাল |4060
Panama

Leave a Reply

Your email address will not be published.