কুরবানি পশু জবাইয়ের নিয়ম

Spread the love

কুরবানি পশু জবাইয়ের নিয়ম

ঈদ-উল-আযহা মুসলিম উম্মাহর সবচেয়ে মাহাত্ম্যপূর্ণ উৎসবের মধ্যে অন্যতম। বিশ্বব্যাপী মুসলিমরা এই দিনে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে পশু কুরবানি করে থাকেন, যা আল্লাহর উদ্দেশ্যে আত্মত্যাগ ও আনুগত্যের নিদর্শন হিসেবে উৎসর্গ করা হয়।

কুরবানি কবুল হওয়ার একটি প্রাথমিক শর্ত হলো পশুকে যথাসম্ভব কম কষ্ট দিয়ে কুরবানি করা। ইসলামের নিয়ম অনুযায়ী কুরবানি করতে হলে লক্ষ্য রাখতে হবে বিশেষ কিছু বিষয়ের প্রতি, যা পশুটির শেষমূহুর্তে কষ্টকে লাঘব করবে ও দ্রুত মৃত্যু নিশ্চিত করার পাশাপাশি পশুর মাংসের গুণাগুণও রক্ষা করতে সাহায্য করবে।

  • ধারালো ছুরি ব্যবহার করুনঃ

পশু জবাইয়ের ক্ষেত্রে তীক্ষ্ণ ও ধারালো ছুরি ব্যবহার করুন, যাতে সহজে ও দ্রুত জবাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যায় এবং পশুর কষ্ট কমিয়ে আনা যায়।

  • পশুর শ্বাসনালী, খাদ্যনালী ও রক্তনালী কাটুতে হবেঃ-

ইসলামের নিয়ম অনুযায়ী, শ্বাসনালী, খাদ্যনালী ও দুটি প্রধান রক্তনালীর যেকোনো একটি জবাইয়ের সময় কাটতে হবে। ধারালো ছুরির সাহায্যে তিনবারে দ্রুত কাটতে হবে, কিন্তু পশুর স্পাইনাল কর্ড কাটা যাবেনা। মূল তিনটি নালী (শ্বাসনালী, খাদ্যনালী ও রক্তনালী) কেটে দিলে পশু স্বাভাবিক রক্তক্ষরণের প্রভাবে মারা যাবে।

  • পশুর স্পাইনাল কর্ডে খোঁচা দেয়া যাবেনা

জবাই করার সময় ছুরির তীক্ষ্ণ মাথা দিয়ে খোঁচা দিয়ে স্পাইনাল কর্ড কেটে দেয়ার যে নিয়ম প্রচলিত আছে, তা সম্পূর্ণ ভুল। ধারণা করা হয় যে এতে পশু দ্রুত মারা যায় ও তার কষ্ট কম হয়। কিন্তু এ ধারণা ভুল, কারন স্পাইনাল কর্ড কাটার মাধ্যমে পশুর হৃদপিন্ডের স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে, যার ফলে পশুর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যেতে পারে এবং প্যারালাইজড হয়ে যেতে পারে। ফলে দেহ থেকে রক্ত নির্গত হতে পারেনা এবং মাংসে জমাট বেঁধে যায়। তাই খোঁচা দিয়ে স্পাইনাল কর্ড কাটার নিয়মকে সম্পূর্ণভাবে পরিহার করতে হবে।

  • রক্ত বেরিয়ে যেতে দিন

পশুর দেহ থেকে রক্ত সম্পূর্ণরূপে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই পশুর চামড়া ছাড়ানো বা মাথা কেটে ফেলা থেকে বিরত থাকুন। রক্ত স্বাভাবিকভাবে বেরিয়ে যেতে না দিলে, তা মাংসে জমাট বেঁধে মাংসের মান কমিয়ে দিতে পারে। এছাড়াও রক্ত বিভিন্ন জীবাণু জন্মানোর জন্য আদর্শ পরিবেশ সৃষ্টি করে, যার ফলে মৃত পশুর মধ্যে দ্রুত জীবাণুর বংশবিস্তার ঘটতে পারে। তাই কুরবানির পরে আগে রক্তকে বেরিয়ে যেতে দিন, ও বাদবাকি কাজের পূর্বে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন।

ইসলামিক নিয়মে কুরবানি সম্পন্ন করতে সচেতন ও ধৈর্য্যশীল হওয়া বাঞ্ছনীয়। আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে নিয়ম মেনে কুরবানি করুন। কুরবানির পশুর প্রতি সদয় হোন ও তার কষ্ট লাঘবের জন্য সচেষ্ট হোন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.