ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার

Spread the love

ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার

মূত্রনালীর ইনফেকশন এর সমস্যা আজকাল অনেক বেশি ছড়িয়ে পড়েছে আমাদের আশেপাশে। অনেকেই এই ধরনের সমস্যা ভুগছেন। নারী-পুরুষ উভয়েরই এই ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অনেকটা সময় প্রসাবে চেপে রাখা, গর্ভধারণ, ডায়াবেটিস, যৌনমিলন সমস্যা ও মেনোপজের সমস্যায় ইত্যাদি এই সমস্যা বেশি হতে দেখা যায়। তাই সতর্ক থাকতে হবে নিজেকেই। দীর্ঘ সময় ধরে এই ধরনের সমস্যা থাকলে কিডনিতে সমস্যা এমনকি কিডনি বিকল হয়ে যেতে পারে।

 কিছু ধরনের খাবার রয়েছে যা এই মূত্রনালীর ইনফেকশন হতে মুক্তি দিতে পারে জেনে নেয়া যাক এ সকল খাবারগুলো সম্পর্কেঃ-

 আমলকিঃ-

 আমরা জানি যে কোন ধরনের ইনফেকশন প্রতিরোধে ভিটামিন সি এর ভূমিকা অতুলনিও। আমলকীতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যা মূত্রনালীর ইনফেকশন প্রতিরোধ করার ক্ষমতা রাখে ১ কাপ পানিতে ১ চা চামচ হলুদ গুঁড়া ও ১ চামচ আমলকির গুঁড়া ফুটিয়ে নিতে হবে। মিশ্রণটি ফুটে অর্ধেক হয়ে এলে তা পান করতে হবে  চায়ের মত করে, এই নিয়ম অনুযায়ী দিনে তিনবার করে তিন থেকে পাঁচ দিন পান করতে হবে এই পানীয়টি। আশা করা যায় মূত্রনালীর ইনফেকশন দূর হয়ে যাবে এবং ভালো সুফল পাওয়া যাবে।

আমলকী
আমলকী

পেঁপেঃ-

পেঁপেতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন-সি, ভিটামিন- এ ভিটামিন-ই এর মতে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান যা আছে বলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয় ও প্রস্রাবে অ্যাসিডিটি বাড়ায়, যে কারণে নফেকশন তৈরি করা ব্যাকটেরিয়া গুলো জন্মাতে পারে না।  গবেষণায় বলা হয়েছে, কাঁচা পেঁপেতে গাজর ও টমেটোর চেয়েও অনেক বেশি ক্যারটিনয়েডস পাওয়া যায়। তাই এটি আমাদের শরীরের ক্যারটিনয়েড ও ভিটামিনের ঘাটতি পূরণ করে পুষ্টির উৎস হিসেবে কাজ করে।

কাঁচা পেঁপের বৈশিষ্ট্য Best Food Raw papaya05
পেঁপের

 আনারসঃ-

 যদি আপনার নিয়মিত আনারস খাওয়ার অভ্যাস থেকে থাকে তা আপনাকে মূত্রনালীর ইনফেকশন থেকে মুক্তি রাখতে সহায়তা করবে। কারণ আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে  ব্রোমেলেইন  যার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান প্রদাহ বন্ধ করতে সহায়তা করে। যার ফলে প্রশাবে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

আনারস
আনারস

রসুনঃ-

রসুনে অ্যালিসিন সহ বেশ কিছু উপকারি উপাদান থাকে যা অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও রোগ প্রতিরোধ বাড়াতে বেশ ফলদায়ক। রসুন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে যার কারণে রসুনকে গরিবের পেনিসিলিও বলা হয়ে থাকে। প্রতিদিন সকালে এক টুকরো রসুন খেলে শরিরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমাত বৃদ্ধি হয় এবং বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। রসুনে রয়েছে ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট নামক উপাদান যা এন্টি অক্সিডেন্ট উৎপন্ন করতে সাহায্য করে এবং শরীরের বিষাক্ত বস্তু ধংস করে থাকে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। রসুন ই.কোলি সহ অনেক ব্যাকটেরিয়াকে দমন করতে পারে রসুন। বার বার ফিরে আসা ইউরিন ইনফেকশন রোধেও রসুন বেশ উপকারি। কাঁচা রসুন খেলে উপকার বেশি পাওয়া যায়।

রসুন
রসুন

 বেকিং সোডাঃ-

 একগ্লাস পানিতে ১ চা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে দিনে দুইবার পান করার অভ্যাস করলে এটি এসিড উৎপাদন নিয়ন্ত্রন রাখে এবং এতে করে প্রস্রাবের অ্যাসিডিটি কমায়।  এতে করে ব্যাথা কম হয় এবং ইনফেকশন দূর হয়।

বেকিং সোডা
বেকিং সোডা

আপেল সিডার ভিনেগারঃ-

আপেল সিডার ভিনেগার মূত্রনালীর ইনফেকশন নিরাময়ের অনেক কার্যকর একটি উপাদান হিসেবে কাজ করে আসছে।  কারণ আপেল সিডার ভিনেগরে রয়েছে পটাশিয়াম এনজাইম এবং আরও বেশকিছু এসেন্সিয়াল মিনারেলস যা মূত্রনালীর ইনফেকশন দূর করতে সহায়তা করে।  এক গ্লাস পানিতে দুই টেবিল-চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে দিনে দুইবার করে পান করে নিন কয়েকদিন সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে ।

আপেল সিডের বিনেগার
আপেল সিডের বিনেগার

ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার

One thought on “ইউরিন ইনফেকশন হলে খাবার

Leave a Reply

Your email address will not be published.