ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা

Spread the love

ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা

ওজন কমানো নিয়ে আমরা কতোই না কষ্ট করে থাকি। জন কমানো রীতিমতো এক ধরনের যুদ্ধ করতে হয়। যাদের ওজন বেশি তাহারা এ বিষয়টি ভালো করেই অনুভব করছেন। কিছু বাধাদরা নিয়ম কানুনের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করতে হয় নিজেকে। তবু ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা তখন এক ধরনের হতাশা কাজ করে। অনেকেই বছরের পর বছর ডায়েট করে থাকে তবুও তাহারা কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া যাচ্ছেনা  আবার অনেকে আছেন যে অল্প সময়ে ডায়েট করে থাকেন, যা একেবারেই স্বাস্থ্যসম্মত নয়।

অনেকে আছেন যাঁরা ওজন কমাতে “ইয়ো ইয়ো ডায়েট করনে। ইয়ো ইয়ো ডায়েছে কখরো ওজন কমানো হয়, আবার কখনো ওজন বাড়ানো হয়। এভাবে খাদ্যতালিকাটি চক্রাকার ঘোরে। কয়েক বেলার খাবার বাদ দিয়ে এবং নিম্ন মাত্রায় ক্যালোরি সমৃদ্ধ খাবার গ্রহন করে এই ডায়েট করা হয়। এসব ডায়েট কিছু সময়ের জন্য ওজন কমালেও দীর্ঘমেয়াদি স্বাস্থ্যের জন্য উপকার বয়ে আনে না । কিছু সময়ের জন্য এর ফলাফল ফেলেও পরে আবার সেই অবস্থানেই ফিরে আসে।  এছাড়াও আরও অনেক কারন  রয়েছে যার ফলে ওজন কমেনা ।

ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা তাবে তার কারনের পিছনে কারন কি রয়েছে?

ডায়েট কেন করব
ঘুম না হওয়াঃ-

ঘুম আমাদের জন্য খুব দরকারী একটা জিনিস। ঘুম আমাদের রীরের ওজনের উপরে বড় ধরনের প্রভাব ফেলে। গবেষকদের মতে কম ঘুম বা বেশি ঘুম উভয়ই ওজন বাড়িয়ে দিয়ে থাকে। তাই ওজন নিয়ন্ত্রনে নির্দিষ্ট পরিমাণে ঘুমাতে হবে।

খাদ্যাভ্যাসে অনিয়ম

ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা তখন চিন্তার বিষয় হয়ে দাড়ায় কেন কমছেনা ওজন। তাবে দ্রুত ওজন কমাতে গিয়ে অনেকেই খাবার বেলায় অনিয়ম করে থাকি। আমরা মনে করি হয়তো না খেয়ে থাকলেই হয়তো শরীরের ওজন কমতে পারে, তাই কোন বেলার খাবার একেবারেই না খেয়ে থাকি। এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারনা। না খেয়ে থাকলে যে শরীরে ওজন কমবে এটা ঠিকনা । এসব ডায়েটে ওজন কিছু সময়ের জন্য কমলেও যে ওজন ঝড়িয়েছেন সেটা পুনরায় খাবার গ্রহনের মাধ্যমে বেড়ে যেতে পারে। আর দ্রুত ওজন কমানোর ডায়েট মেনে চলতে থাকলে শরীর দুর্বল হয়ে পড়তে পারে। তাই খাবারকে অবহেলা করে বা কোনো বেলা খাবার না খেয়ে ডায়েট করলে করা একেবারেই ঠিক না। আপনি জদি সত্যি ডায়েট করতে চান তাহলে আগে পরিকল্পনা করুন কী খাবেন, কখন খাবেন, এবং কি খাবেন।

মানসিক পেশার

মানসিক পেশার নেয়ার ফলে ওজন কমানোর প্রক্রিয়াকে ব্যহত করে থাকে। মানসিক চাপে থাকলে করটিসল নামক এক ধরনের হরমোন নিঃসৃত হয়, যা ওজন বাড়িয়ে তোলে এবং স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তাই মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।

প্রেশার
মানসিক প্রেশার
অপরিকল্পিত খাবার গ্রহন

ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা তখন আমরা অনেকেই বেশি স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে চাই। খাবার বিক্রেতাগণ তাদের পণ্য বিক্রির জন্য পণ্যের গায়ের অমুক খকোরের স্বাস্থ্যকর বিকল্প-এ ধরনের লেভেল লাগিয়ে বিষয়টিকে আকৃস্ট করে তোলে । তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে খাবারেগুলো তেমন স্বাস্থ্যকর হয় না। এসব খাবার কৃুত্রম চিনি এবং ক্যালোরি বেশি থাকে। যেমন ফলের জুস, গ্র্যানোলা সেরিয়াল। তাই এ ধরনের খাবার বাদ দেয়া উচিত।

ডায়েট চার্ট
প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া

ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা তখন খুবই টেনশনে পড়তে হয়। সে ক্ষেত্রে ওজনের ভারসাম্য বজায় রাখতে প্রোটিন খাওয়ার এবং ব্যায়াম করা খুব জরুরী। ওজম কমাতে চান-এমন বেশির ভাগ নারী এই বিষয়গুলো বোঝেন না। প্রোটিন না খেলে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে, আর ওজন কমানোর ক্ষেত্রেও বিষয়টি তেমন কার্যকরী হয় না। আবার অনেকেই থাকেন যারা কেবল খাবারই কম খান কিন্তু ব্যায়াম করেনা।প্রোটিন খাওয়া এবং ব্যায়াম করলে পেশি ভালো থাকে এবং শরীরে ভারসাম্য তৈরী হয়। ডাল, মুরগীর মাংস, মাছ, দুধ, বিভিন্ন ধরনের বাদাম ইত্যাদি প্রোটিনের ভালো উৎস।

কী করতে পারেন

ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা ? মনে রাখতে হবে, দ্রুত ডায়েটে করে তারাতাড়ি ওজন কমানো আসলে তেমনভাবে কার্যকরী হয় না। ধীরে ধীরে শরীরের অবস্থা বুঝে খাওয়ার অভ্যাসকে পরিবর্তন করুন। স্বাস্থ্যকর খাবার বেশি করে খান। এই ক্ষেত্রে প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি, ফল ইত্যাদি খান এবং লাল মাংস এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

গবেষকদের মেতে যেকোন অভ্যাসে অভ্যস্ত হতে কমপক্ষে কয়েক মাস লেগে যায়। তাই ওজন কমাতে ধৈয্য ধরুন, তাড়াহুড়া করবেন না। সীমিত খাওয়া ও শরীরের জন্য ক্ষতিকর খাবর এড়িয়ে চলার অভ্যাস একবার আয়েত্তে চলে এলেই ওজন কমতে শুরু করবে। (সূত্র-আমার স্বাস্থ্য আমার সুখ গ্রন্থ থেকে)

One thought on “ডায়েট করেও যখন ওজন কমেনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *