নারিকেল তেল কি খাওয়া যায়

Spread the love

নারিকেল তেল কি খাওয়া যায়

খাদ্য হিসেবে নারিকেল তেল

নারিকেল তেল কি খাওয়া যায় এমন প্রশ্ন আমাদের মনের মধ্যে অনেকরেই রয়েছে, নারিকেল তেল দিয়ে রান্না করা যায় তা আমরা অনেকেই জানিনা। আমাদের ধারনা যে নারিকেল তেল খাওয়া যায়না অথবা খাওয়া গেলেও তা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী নয় বরং ক্ষাতিকর। কিন্তু নারিকেল তেল একটি অসাধারণ খাবার। এ তেলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুনাগুন যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী। নারিকেল তেল শরীরের খারাপ কোলেস্টেরল কমিয়ে ভালো কোলেস্টেরল বাড়িয়ে থাকে। হজমে সহয়তা করে, রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রন রাখা সহ অনেক ধরনের উপকার করে থাকে ।

নারিকেল তেলের পুষ্টি উপাদান
  • ভিটামিন ই
  • ভিটামিন কে
  • স্নেহ
  • লৌহ
  • Phytosterols
  • আয়রন
  • জিঙ্ক
  • ক্যালসিয়াম
  • ফ্যাটি অ্যাসিড ইত্যাদি
খাদ্য হিসেবে নারিকেল তেলের স্বাস্থ্য উপকারীতা
হৃদরোগের ঝুঁমি কমায়

নারিকেল তেল কি খাওয়া যায় এমন প্রশ্নে আমাদের যেনে রাখা ভালো নারিকেল তেল শরীরের কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে দেয় । এটি এল,ডি,এল এর মাত্রা কমিয়ে শরীরের এইচ,ডি,এল এর মাত্রা বাড়িয়ে দ্যায় যার ফলে হৃদরোগের ঝুঁকি কম থাকে এবং হৃদপিন্ড সুস্থ্য রাখে। এছাড়াও নারিকেল তেল শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করে যা গবেষণায় প্রমানিত। নারিকেল তেলে লুরিক অ্যাসিড নামের এক ধরনের ফ্যাট রয়েছে যা রক্তে ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায় এবং কোলেস্টেরলের মাত্রায় ভারসাম্য এনে হূদরোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

ইনফেকশন থেকে বাচাঁতে সহায়তা করে

নারিকেল তেলের যে পরিমান স্নেহ পদার্থ রয়েছে তার ১২- কার্বন লোরিক এসিড। এটি পরিপক হবার সময় মনোলোরিয়াম নামক এক ধরনের পাদার্থ উৎপাদন করে। যার ফলে এই উপাদান ২ টি এক হয়ে ব্যাকটেরিয়া ও ইনফেকশন হওয়া থেকে শরীরকে বাঁচাতে সাহায্য করে থাকে। নারিকেল তেল শরীরের ইনসুলিনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে শরীরের হরমোন তৈরীতে সহায়তা করে থাকে।

সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

নারিকেল তেল সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ভালো কাজ করে থাকে। মাতৃত্বজনিত দাগ দূর করতে নারিকেল তেলের তুলনা অপরিসীম। এছাড়াও চোখের মেকাপ তুলতে নারিকেল তেল বেশ কার্যকর। নারিকেল তেলে লরিক অ্যাসিড রয়েছে, যা প্রদাহ-বিরোধী এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল প্রভাব প্রদর্শন করে। এই কারণে, নারিকেল তেল দাঁতের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল বলে বিবেচিত হতে পারে।

বয়সের ছাপ দূর করে

নারিকেল তেল বয়সের ছাপ দূরকরতে সহায়তা করে চেহারার উজ্জলতা বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করে থাকে। এতে থাকা উপাদান গুলো চেহারার লাবন্নতা বাড়াতে খুবই কার্যকর ভূমিকা রেখে থাকে। নারিকেল তেলে উচ্চমাত্রার অ্যান্টি-অ্যাক্সিজেন্ট থাকায় ত্বকের সুরক্ষায় ভালো কাজ করে থাকে। ভিটামিন ই সমৃদ্ধ নারকেল তেল শরীরের দাগ দূর করতে সহায়তা করে থাকে এছাড়াও ত্বকে বালিরেখাপড়া সহ ত্বকের আরও অনেক উপকার করে থাকে।

ওজন কমাতে সহায়তা করে

নারিকেল তেলে রয়েছে মাঝারি চেইন ফ্যাটি অ্যাসিড , ক্যাপ্রিক অ্যাসিড , ট্রাইগ্লিসারাইড নামক উপাদান যা ওজন কমানো কাজে সহায়তা করে থাকে। নারিকেল তেল শরীরের অপ্রয়োজনীয় ক্যালরি পোড়াতে সহায়তা করে থাকে। নারিকেল তেল নিয়মিত খেলে শরীরের জমে থাকা অতিরিক্ত অ্যাবডোমিনাল ফ্যাট কমে যায় যা শরীরের ওজন কমাতে এবং শরীরকে সুস্থ্য রাখতে বেশ উপকারী ভূমিকা পালন করে থাকে।

এছাড়ও নারিকেল তেলে রয়েছে লং চেইন বা ট্রাইগ্লিসারাইড এল,সি,টি। মিডিয়াম চেইন ট্রাইগ্লিসারাইড স্নেহ পদার্থকে অন্ত্র থেকে সরাসরি যকৃতে নিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে এর বেশিরভাগটাই সেখানে পুড়িয়ে ফেলে। অন্যদিকে এল,সি,টি স্নেহ পদার্থগুলোকে জমা করে শরীরের বিভিন্ন অংশে ফ্যাট টিস্যু হিসেবে । ফলে এম,সি,টি হওয়ায় নারকেল তেল শরীরে স্নেহ পদার্থ জমতে না দিয়ে নিঃশ্বেস করে দ্যায় এবং শরীরকে চর্বিমুক্ত রাখতে সহায়তা করে থাকে।

One thought on “নারিকেল তেল কি খাওয়া যায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *