গাজরের উপকারিত যত গুনাগুণ

Spread the love

গাজরের উপকারিত যত গুনাগুণ

   

গাজর একটি শীতকালীন সবজি। পুষ্টিগুনে ভরপুর এই গাজরকে অনেকে আবার সুপার ফুড বলে থাকে। গাজরের উপকারিত যত গুনাগুণ-এর ভিতরে সর্দি কাশি সহ আরও অনেক রোগের উপকার করে থাকে । নানা ধরনের খাদ্য তৈরীতে গাজর ব্যবহার কার হয়ে থাকে, তবে সালাদ তৈরীতে এর ব্যবহার উল্লেখযোগ্য।  গাজরের ভিটামিন গুনাগুনে তুলনা অপরিশীম। আমরা জেনে নিব গাজরের উপকারিত যত গুনাগুণ ।

গাজরের পুষ্টি উপাদান

  • ক্যালোরি
  • জল
  • চিনি
  • প্রটিন
  • ফ্যাট
  • কার্বস
  • ফাইবার
  • ভিটামিন-এ
  • পটাশিয়াম
  • মিনারেল ইত্যাদি

গাজরের উপকারিত যত গুনাগুণ

  • ক্যান্সার প্রতিরোধ করেঃ- গাজর ফুসফুসের ক্যান্সার, স্তন ক্যান্সার এবং কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে পারে। গাজরগুলি এন্টি-কার্সিনোজেনিক বৈশিষ্ট্য ধারণ করে যা কোলন ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধিকে বাধা দেয়।

  • হার্ট ভালো রাখেঃ- গাজরে রয়েছে  ডায়েটরি ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ যার ফলে এটি  ধমনির ওপর কোনো কিছুর আস্তরণ জমতে না দিয়ে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে যার কারনে হার্ট ভালো রাখে।

  • ত্বক ভালো রাখেঃ– গাজরে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট  যা আপনার ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করতে সহায়ক। সেই সাথে ভিটামিন এ উপাদান ত্বকের  ভাঁজ পড়া, কালো দাগ, ব্রন, ইত্যাদি দূর করে।
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ-গাজর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে থাকে। নিয়মিত গাজর জুস করে খেলে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। শরীরে ক্ষতিকর জীবাণু, ভাইরাস এবং বিভিন্ন ধরনের প্রদাহের বিরুদ্ধে কাজ করে। এতে থাকে ভিটামিন বিভিন্ন ধরনের খনিজ, পটাশিয়াম, ফসফরাস ইত্যাদি  যা হাড় গঠন করতে সহায়তা করে এবয়  নার্ভাস সিস্টেমকে শক্ত করা ও মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে থাকে
  • মুখের ক্ষত সাড়ায়ঃ- গাজর মুখের ক্ষত সাড়াতে ভালো কাজ করে থাকে। বিশেষ করে যার ধুমপান করে থাকেন তাদের কে লক্ষ করা যায় যে তাদের মুখে ক্ষত হয়ে যায় এমন কি মুখে সাদা আবরন পরে থাকে তবে এই সমস্যা হতে মুক্তির জন্য নিয়মিত গাজর খেলে সমস্য থেকে সমাধান মিলে। গাজর হলো বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ খাবার আর গবেষনায় দেখা যায়  যেসব লোকদের মুখে ক্ষত রয়েছে তারা বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ খাবার খেলে তাদের মুখে ক্ষত হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়
  • জন্ডিস ঝুকি কমায়ঃ- গাজরের রস জন্ডিস ঝুকি কমিয়ে থাকে বিশেষ করে গর্ভবতী মা জদি গাজরের রস করে খায় তাহলে গর্ভের বাচ্চার জন্ডিসের ঝুঁকি কম থাকে।
  • দাঁত ভালো রাখেঃ- গাজরে রয়েছে প্রচুর পরিমানে মিনারেল যা দাঁতকে মজবুত ও চকচকে রাখতে সাহায্য করে।
  • পেটের কৃমি কমায়ঃ- গাজর আপনার পেটের কৃমি কমাতে সহায়ক। গাজরে থাকা ফাইবার  কৃমিনাশক হিসেবে কাজ করে থাকে এবং শরীর সুস্থ্য রাখে।
  • দৃষ্টি শক্তি বাড়ায়ঃ- গাজরে রয়েছে ভিটামি-এ উপাদান যা আপনার দৃষ্টি শক্তি বাড়াতে সহায়তা করে থাকে।
  • ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রন করেঃ- পটাশিয়াম নামক উপাদান থাকায় গাজরে ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রনে কাজ করে থাকে ।
  • গাজরে শরীরের পুষ্টি  এবং বুদ্ধির বিকাশ ঘটায়
  • গাজর লিভার ভাল রাখে।
গাজর বাগান
গাজর

আরও পড়ুনঃ-কাঁচা মরিচের বিস্ময়কর উপকারীতা

প্রতি ১০০ গ্রাম গাজরের পুষ্টিমান নির্নয়

পুষ্টিপরিমানদৈপ %
ভিটামিন এ৮৩৫ μg১০৪%
বিটা-ক্যারটিন৮২৮৫ μg৭৭%
থায়ামিন বি ১০.০৬৬৭ ‍মি.গ্রা৬%
নায়াসিন বি৩০.৯৮৩ মি.গ্রা৭%
ভিটামিন বি৬০.১৩৮ মি.গ্রা.১১%
ভিটামিন সি৫.৯  মি.গ্রা.৭%
ভিটামিন ই০.৬৬ মি.গ্রা.৪%
ফোলেট বি৯১৯ μg৫%
ম্যাগনেশিয়াম১২ মি.গ্রা.৩%
ম্যাঙ্গানিজ০.১৪৩ মি.গ্রা৭%
ফসফরাস৩৫ মি.গ্রা.৫%
পটাশিয়াম৩২০ মি.গ্রা.৭%

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *