গরম পানির খাওয়ার স্বাস্থ্য উপকারীতা।

Spread the love

গরম পানির খাওয়ার স্বাস্থ্য উপকারীতা।

গরম পানি খাওয়ার ফলে আমাদের অনেক স্বাস্থ্য গত উপকার হয়ে থাকে যা একদল জাপানি চিকিৎসা বিজ্ঞানির গবেষণায় পাওয়া গেছে। তারা বলেন, মানব দেহের স্বাস্থ্য সমস্যা সমাধারে গরম পানি ১০০ ভাগ কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।

গরম পানির খাওয়ার স্বাস্থ্য উপকারীতা।

  • পেটের সমস্যা সমাধান করে
  • হঠাৎ হৃৎস্পন্দন বৃদ্ধি এবং হ্রাস
  • জয়েন্ট এর ব্যথা সমস্যা সমাধান করে
  • উচ্চ রক্তচাপ সমস্যা সমাধান করে
  • নিম্ন রক্তচাপ সমস্যা সমাধান করে
  • মাইগ্রেন সমস্যা সমাধান করে
  • শারীরিক অস্বস্তি সমস্যা সমাধান করে
  • কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে
  • মাথা ব্যথা সমস্যা সমাধান করে
  • কাশি সমস্যা সমাধান করে
  •   হাঁপানি সহ ইত্যাদি আরও অনেক শারিরীক সমস্যায় কার্যকরী ‍ভূমিকা পালন করে থাকে।

গরম পানি থেরাপি যুক্তি সঙ্গত সময়ের মধ্যে যে সমস্ত স্বাস্থ্য সমস্যাগুলির সমাধান করবে, নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো : –

  • ৩০ দিনের মধ্যে ডায়াবেটিস ,রক্তচাপ ১০ দিনের মধ্যে পেটের সমস্যা ০৯ মাসের মধ্যে সমস্ত ধরণের ক্যান্সার ০৬ মাসের মধ্যে শিরার বাধার সমস্যা ১০ দিনের মধ্যে ক্ষুধা জাতীয় সমস্যা ১০ দিনের মধ্যে জরায়ু এবং এর সম্পর্কিত রোগগুলি ১০ দিনের মধ্যে নাক, কান এবং গলার সমস্যা ১৫ দিনের মধ্যে মহিলাদের সমস্যা ৩০ দিনের মধ্যে হৃদরোগ জাতীয় সমস্যা ০৩ দিনর মধ্যে মাথা ব্যাথা / মাইগ্রেন সমস্যা ০৪ মাসের মধ্যে কোলেস্টেরল সমস্যা ০৯ মাসের মধ্যে মৃগী এবং পক্ষাঘাত সমস্যা ০৪ মাসের মধ্যে হাঁপানি সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

 ঠান্ডা পানি পান করা ক্ষতির দিক সমূহঃ-

  •   হার্ট  এ্যাটাক হওয়ার মূল কারন হিসেবে আমরা কোল্ড ড্রিঙ্কস কে প্রধান কারন হিসেবে ধরতে পারি। কেননা  ঠান্ডা পানি খাওয়ার ফলে হার্ট এ্যাটাকের সম্ভাবনা বেড়ে যায়, ঠান্ডা পানি হার্টের ৪টি শিরা বন্ধ করে দেয় যার কারনে হার্ট অচল হয়ে যায় যার কারনে হার্ট এ্যাটাক হওয়ার সম্ভাবনা অনেক গুন বেড়ে যায়।
  • ঠান্ডা পানি  লিভারেও সমস্যা তৈরি করে। এটি লিভারের সাথে ফ্যাট আটকে রাখে। লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টের অপেক্ষায় থাকা বেশিরভাগ মানুষ ঠান্ডা পানি পান করার কারণে এর শিকার হয়েছেন।
  •  ঠান্ডা পানি পেটের অভ্যন্তরীণ দেয়ালকে প্রভাবিত করে। এটি বৃহৎ অন্ত্রকে প্রভাবিত করে এবং ফলস্বরূপ ক্যান্সারে রুপ নেয়।

বিঃদ্রঃ: গরম পানি পান করার পরে ৪৫ মিনিট কোনো কিছুই খাওয়া যাবে না। অতিরিক্ত মাত্রার গরম পানি  কখনও খাবেন না যা আপনার খাদ্যনালীতে ঘা হতে পারে তাই পানি কখনও অতিরিক্ত গরম অবস্থায় খাবেন না। গরম পানি খেতে হলে কুসুম গরম(হালকা গরম) পানি খেতে হবে।

খেজুরের ৭ ধরনের স্বাস্থ্য উপকারিতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *